‘চাই সদস্যদের মুখের হাসি ও আর্থিক সমৃদ্ধি’

‘চাই সদস্যদের মুখের হাসি ও আর্থিক সমৃদ্ধি’
প্রকাশ : ১৭ জুন ২০১৬, ১৪:৫১:১৭
‘চাই সদস্যদের মুখের হাসি ও আর্থিক সমৃদ্ধি’
উজ্জ্বল এ গমেজ
প্রিন্ট অ-অ+
জামান খান। পেশায় কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার। আইটি সেক্টরে কাজ করছেন ১০ বছর ধরে। বাংলাদেশে ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের অন্যতম পথিকৃৎ। তার হাত ধরেই বাংলাদেশে ইমেইল মার্কেটিং ও এসএমএস মার্কেটিংয়ের সূচনা হয়। শুরু করেছিলেন ২০০৬ সালে। এই দশ বছরে সেবা দিয়েছেন ২০ হাজারেরও বেশি ক্লায়েন্টকে। তার কোম্পানি জামান আইটি বর্তমানে দেশের সফল সফটওয়্যার কোম্পানিগুলোর অন্যতম। পেরিয়েছেন অনেক ঘাত-প্রতিঘাত। সেই অভিজ্ঞতার আলোকে ঢেলে সাজাতে চান বেসিসকে। নিয়ে যেতে চান এক অনন্য উচ্চতায়।
 
আগামী ২৫ জুন অনুষ্ঠেয় সফটওয়্যার প্রস্তুত ও রফতানিকারকদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) ২০১৬-১৯ সেশনের নির্বাচনে বাংলাদেশ মাইক্রোসফটের এমডি সোনিয়া বশির কবিরের নিতৃত্বে দ্য চেঞ্জ মেকারস প্যানেলে সহযোগী সদস্য ক্যাটাগরিতে অংশগ্রহণ করছেন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার জামান খান।
 
এই তরুণ সম্ভাবনাময় কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার সম্প্রতি বিবার্তার মুখোমুখি হন। জানান বেসিস নির্বাচনের হালচাল নিয়ে গঠনমূলক ও আশাবাদী নানান কথা। সাক্ষাৎকারটি গ্রহণ করেছেন বিবার্তা২৪ডটনেটের নিজস্ব প্রতিবেদক উজ্জ্বল এ গমেজ। 
 
বিবার্তা: বেসিস নির্বাচন নিয়ে আপানি কী ভাবছেন?
জামান খান: আমাদের আইটি ইন্ডাস্ট্রিতে বেসিস নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এই নির্বাচনের উপর নির্ভর করে আমাদের আইটি ইন্ডাস্ট্রির ভবিষ্যৎ। সরকার এই সেক্টর নিয়ে কাজ করতে আগ্রহী। দেশের কর্পোরেট কোম্পানিগুলো এখন আইটি ছাড়া অচল। এমতাবস্থায় সরকারের কাছ থেকে নীতি নির্ধারণী পর্যায়ে প্রয়োজনীয় সুবিধা আদায় করে এবং প্রাইভেট সেক্টরকে সচেতন করে বেসিস সদস্যদের সামনে এগিয়ে যাবার ব্যাপারে বেসিস অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারে। আর এই পুরো প্রক্রিয়াটি নির্ভর করে নির্বাচিত সদস্যদের উপর। সুতরাং সঠিক ব্যক্তি নির্বাচন করা অনেক গুরুত্বপূর্ণ।
‘চাই সদস্যদের মুখের হাসি ও আর্থিক সমৃদ্ধি’
বিবার্তা: এবারের নির্বাচন বেসিস সংগঠনের গতিশীলতার জন্য কেন জরুরি?
জামান খান: বর্তমান বাংলাদেশে আইটি সেক্টর খুব দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। এই সেক্টর থেকেই সম্ভব সবচেয়ে কম সময়ে সবচেয়ে বেশি উপার্জন করা। সঠিক দিক নির্দেশনা ও প্রয়োজনীয় সরকারি সুযোগসুবিধা এই সেক্টর টিকে খুব অল্প সময়ে তার কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে। একটা ভুল সিদ্ধান্ত পুরো সেক্টরটিকে ধ্বংস করে দিতে পারে। তাই প্রয়োজন নবীন ও প্রবীণদের একটি সমন্বিত দল যারা এই সংগঠনটিকে গতিশীল করে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবে। প্রয়োজন এমন একটি টিম যাদের রয়েছে আন্তর্জাতিক গ্রহণ যোগ্যতা। রয়েছে সরকারের সাথে সুসম্পর্ক, রয়েছে প্রাইভেট সেক্টরের সাথে বন্ধন। আর সর্বোপরি থাকতে হবে দেশের জন্য, সমাজের জন্য, এই সেক্টরের জন্য কাজ করার আগ্রহ। এ রকম একটি টিম নির্বাচিত হলে বেসিসসের গতিশীলতা বৃদ্ধি পাবে। আর দেশ এগিয়ে যাবে।
 
বিবার্তা: নির্বাচিত হলে বেসিস সাধারণ সদস্যদের জন্য আপনার পরিকল্পনা কি?
জামান খান: বড় আইটি কোম্পানিগুলো যথেষ্ট শক্ত অবস্থানে আছে। সেখানে বেসিসের কাজ করার ক্ষমতা কম। তাই তাদের পরামর্শ নিয়ে অপেক্ষাকৃত ছোট কোম্পানিগুলোর উন্নয়ন সাধন করাই আমার মূল লক্ষ্য। আমি ও আমার প্যানেল নির্বাচিত হলে যে কাজগুলো করব- 
 
১. আগামীর তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পের নিরাপত্তা ও প্রসারের জন্য প্রয়োজনীয় সরকারি আইন, নীতিমালা, প্রবিধানমালা তৈরির জন্য সহায়তা ও লবিং। যেমন- ডিজিটাল অ্যাসেটের সরকারি গ্রহণযোগ্যতা, মূল্যায়ন, ইনস্যুরেন্স, খাতওয়ারি তথ্যপ্রযুক্তি নিরাপত্তা পলিসি তৈরি ইত্যাদি।
 
২. ডিজিটাল পণ্য ও সেবাদানকারী কোম্পানিগুলোর আন্তর্জাতিক বাজারে গ্রহণযোগ্য রেটিংয়ের জন্য একটি রেটিং কমপ্লায়েন্স ও নিরীক্ষণ পরিসেবা অধিদপ্তর তৈরি।
 
৩. বেসিসের একটি নিজস্ব রিসার্চ উইং তৈরি। ইন্ডাস্ট্রির উন্নয়নের জন্য প্রয়োজনীয় বিষয়গুলোতে নিয়মিত গবেষণা ও প্রকাশনার ব্যবস্থা। বাইরের যেকোনো বডির প্রয়োজনে ওই সেলকে ব্যবহারের সুবিধা।
 
৪. ডিজিটাল পণ্য ও সেবা রপ্তানি প্রমোশনের জন্য আমাদের বিদেশি গুরুত্বপূর্ণ মার্কেটগুলোতে কার্যকর ট্রেড প্রমোশন ডেস্ক স্থাপন।
 
৫. ডিজিটাল পণ্য ও সেবাদানকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর জনশক্তিতে বিনিয়োগের নিরাপত্তার পরিবেশ তৈরি এবং সরকারি নীতিমালার মাধ্যমে বাধ্যকতা তৈরি।
 
৬. ডিজিটাল পণ্য ও সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে জনশক্তিতে নিয়োগ-বিয়োগ বিষয়ক একটি সর্বগ্রহণযোগ্য নীতিমালা তৈরি, যাতে এক কোম্পানির লোক অন্যায়ভাবে অন্য কোম্পানি নিয়ে না যেতে পারে। নিয়ে যেতে চাইলে একটি সুনির্দিষ্ট প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে নিতে হয়।
 
৭. বেসিসের সব অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ বাংলাতে করা। বিদেশি ভাষায় যোগাযোগের জন্য ইংরেজির বাইরেও চাইনিজ ও অন্যান্য বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ ভাষায় অনুবাদের ব্যবস্থা।
 
৮. জনশক্তি তৈরিতে দেশের মূলধারার শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থার সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক স্থাপন। তাদের যুগোপযোগী কারিকুলাম, শিক্ষা উপকরণ ও নিরীক্ষণ সুবিধা তৈরির জন্য সহায়তা দেয়া।
 
৯. বেসিসের ইসির জন্য কোড অব কন্ডাক্ট তৈরি অর্থাৎ নির্বাহী পরিষদের খরচ এবং কাজের সাথে সম্পৃক্ততার বিষয়ে একটি সুনির্দিষ্ট নীতিমালা তৈরি। কারণ সদস্যদের বঞ্চিত করে শুধুমাত্র ইসি মেম্বারদের কাজ নেবার যে বিতর্ক তৈরি হয়েছে, তার যেন স্থায়ীভাবে অবসান হয়।
 
১০. বেসিসের কাজ নয়, এরকম অপ্রয়োজনীয় উদ্যোগগুলোকে অবিলম্বে বন্ধ করা বা অন্য কোনো উপায়ে সেগুলোকে আলাদা ভাবে গড়ে উঠতে দেয়া।
‘চাই সদস্যদের মুখের হাসি ও আর্থিক সমৃদ্ধি’
১১. সরকারি ক্রয়ের ক্ষেত্রে স্থানীয় পণ্য ও সেবাক্রয়ে আর্থিক অগ্রাধিকার নিশ্চিত করা।
 
১২. ইন্ডাস্ট্রির প্রতিটি খাতের জন্য বিশেষায়িত ট্রেড বডি গড়ে তোলার ক্ষেত্রে সর্বাত্মক সমর্থন দেয়া।
 
১৩. ডিজিটাল অ্যাসেটের সুরক্ষা (কপিরাইট/আইপি) ব্যবস্থাটি সম্পূর্ণভাবে ডিজিটাল করতে কার্যকর উদ্যোগ নেয়া।
 
১৪. বেসিসের একটি নিজস্ব ভবনের সূচনা।
 
১৫. বেসিস সদস্যদের ওয়ান স্টপ সার্ভিস সুবিধা শুরু।
 
এই কাজগুলো আমি ও আমার প্যানেলের সদস্যগণ এক সাথে করব বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি।
 
বিবার্তা: সদস্যরা আপনাকে কেন ভোট দেবে বলে মনে করছেন?
জামান খান: আমাদের বেসিসের সকল সদস্য বুদ্ধিমান। তারা জানে কাকে ভোট দিলে তারা তাদের সুবিধাগুলো আদায় করতে পারবে। যে ১৫ টি সুবিধা বাস্তবায়ন করার জন্য আমি ও আমার প্যানেল কাজ করব তা যদি আমাদের সদস্যরা পছন্দ করে এবং মনে করে এই সুবিধাগুলো তাদের দরকার তবে তারা আমাকে ভোটে জয়ী করবে আশা করি। আসলে নির্বাচনে শুধু জয়ী হওয়াটা আমার লক্ষ্য না। আমি চাই যেই নির্বাচিত হোক, সে যেন এই দাবিগুলো বাস্তবায়ন করে। কারণ এই দাবিগুলো আমাদের প্রাণের দাবি। আমি অনেক বেসিস মেম্বারদের সাথে কথা বলে এই দাবিগুলো উত্থাপন করেছি। যদি আমি নির্বাচিত হই তবে আমি ও আমার প্যানেল এগুলো বাস্তবায়ন করব। 
 
বিবার্তা: নির্বাচিত হলে বেসিসকে সাফল্যের কোন স্তরে দেখতে চান?
জামান খান: বেসিসকে আমি আন্তর্জাতিকভাবে গ্রহণযোগ্য একটি প্রতিষ্ঠান হিসেবে দেখতে চাই যেন পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে আমাদের আইটি কোম্পানিগুলো খুব সহজে কাজ পেতে পারে। শুধু আন্তর্জাতিক মেলায় অংশগ্রহণ নয়, আন্তর্জাতিক বাজারে একটি ফিজিক্যাল এড্রেস স্থাপন করতে চাই। চাই বেসিসের সব সদস্যদের মুখের হাসি ও অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি।
 
বিবার্তা: নির্বাচন উপলক্ষে বেসিস সদস্যদের কিছু বলুন।
জামান খান: আমি জানি বেসিস মেম্বাররা যথেষ্ট প্রাজ্ঞ। যারা নিয়মিত যুদ্ধ করে একটি প্রতিষ্ঠানকে টিকিয়ে রাখে, তারা কখনো ভুল সিদ্ধান্ত নিবে না। তাই আমি চাই আমার প্রাণপ্রিয় ভাই ও বন্ধুরা আমাকে ও আমার টিমকে ভোট দিয়ে জয় যুক্ত করবেন।
 
বিবার্তা/উজ্জ্বল/জিয়া
সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (২য় তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১১৯২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2017 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com