একুশের গ্রন্থমেলায় যুবলীগের ভিন্ন মাত্রার আয়োজন

একুশের গ্রন্থমেলায় যুবলীগের ভিন্ন মাত্রার আয়োজন
প্রকাশ : ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৬, ১৭:১২:৪১
একুশের গ্রন্থমেলায় যুবলীগের ভিন্ন মাত্রার আয়োজন
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+
একুশের গ্রন্থমেলায় বাংলা একাডেমি চত্বরের প্রধান প্রবেশ পথ দিয়ে ঢুকে বটগাছটির ঠিক ডানপাশ দিয়ে চত্বরের উত্তর-পশ্চিম দিকে কিছুটা এগিয়ে গেলেই ছিমছাম, দৃষ্টিনন্দন  একটি বইয়ের স্টল উদ্বাহু হয়ে দাঁড়িয়ে আছে। যেন মেলায় আগত মানুষকে স্বাগত জানাতে সদা প্রস্তুত।  স্টলটির ব্যানারের ডানপাশে  একটি খোলা বইয়ের প্রতিকৃতি তার এক পৃষ্ঠায় বঙ্গবন্ধু অন্য পৃষ্ঠায় রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার ছবি আর বা পাশে গ্লোবসদৃশ একটি বিলবোর্ডে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সম্মাননা প্রাপ্তির খণ্ডচিত্র, তার নীচে বঙ্গবন্ধু ও রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার ছবি সম্বলিত বড় একটি ডিজিটাল ব্যানার।
 
স্টলের ডান পাশের পিলারটি এমনভাবে তৈরী করা হয়েছে যে দেখলেই মনে হবে থরে থরে বই সাজিয়ে তা নির্মাণ করা হয়েছে। স্টলটির এই শৈল্পিক নির্মাণশৈলী  সহজেই মেলায় আগত যে কোনো মানুষের দৃষ্টি ও চিত্তকে আকর্ষণ করে।  নান্দনিক স্থাপত্যশৈলীতে নির্মিত এই স্টলটির নাম “ যুব জাগরণ ”। এটি বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ যুব সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের বইয়ের স্টল। এ নিয়ে পরপর চারবছর বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ একুশে গ্রন্থমেলায় বইয়ের স্টলের আয়োজন করলো। এ স্টলটি মূলতঃ যুবলীগের নিজস্ব প্রকাশনা এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা ও বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ রেহানার লেখা বই নিয়েই সাজানো হয়েছে। বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মাদ ওমর ফারুক চৌধুরীর প্রজ্ঞা ও মেধা-মননের ফসল যুব গবেষণা কেন্দ্রের তত্বাবধানে এ স্টলটি পরিচালিত হচ্ছে।
 
বাংলাদেশের আর কোনো রাজনৈতিক সংগঠন নিজস্ব প্রকাশনা নিয়ে ইতোপূর্বে বইমেলায় কখনো এ ধরনের স্টলের আয়োজন করেনি। বাংলাদেশের আর কোনো রাজনৈতিক সংগঠনের নিজস্ব গবেষণা কেন্দ্র ও প্রকাশনা সেল নেই যেখান থেকে বাংলা ও বাঙালীর ইতিহাস, ঐতিহ্য  বা সমকালীন রাজনীতি ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বকে নিয়ে নিয়মিত বই পুস্তিকা প্রকাশিত হয়। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ পথিকৃৎ। এই প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে মেধা ও মননের চর্চার মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রচলিত রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ একটি নতুন রাজনৈতিক ধারা বা সংস্কৃতি সৃষ্টি করতে সক্ষম হয়েছে। আর এ সব কিছুই  বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরীর প্রজ্ঞা, সৃজনশীলতা ও দূরদর্শী নেতৃত্বের স্বর্ণালী ফসল।
 
যুব জাগরণ স্টলে যে সব বই পাওয়া যাচ্ছে 
 
বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী কর্তৃক বিভিন্ন সময় প্রকাশিত প্রায় চারশত প্রকাশনা এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা ও বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ রেহানার লেখা বইয়ের বিপুল সংগ্রহ রয়েছে যুব জাগরণ স্টলে। যুবলীগ প্রকাশিত যে সকল বই পুস্তিকা এখানে পাওয়া যাচ্ছে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য বই হলো–বাঙালীর হৃদয়ের ফ্রেমে জাতির পিতা, রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার দর্শন, রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম, রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার অর্থনৈতিক মুক্তির সংগ্রাম, রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার পরিবর্তনের ডাক, শেখ হাসিনার জীবন ও সংগ্রাম - গণজাগরণের কাব্য, ইসলামী মূল্যবোধ প্রতিষ্ঠায় বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনা, বঙ্গবন্ধু ও ভাষা আন্দোলন, তোমরা যারা শিবির কর, জাতিসংঘে চার দশক বিশ্বের চোখে বাংলাদেশ, “গণ” পুড়িয়ে “তন্ত্র” দিয়ে কি করবেন ম্যাডাম ?
 
যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরীর লেখা “ জনগণের ক্ষমতায়ন  বিশ্ব শান্তির নেতা রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা ”  বইগুলো  অন্যতম। এ ছাড়া এ স্টলে পাওয়া যাচ্ছে  বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী, রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার লেখা শেখ মুজিব আমার পিতা। এ ছাড়া স্টলে পাওয়া যাচ্ছে  শেখ হাসিনার রচনা সমগ্র-(১), শেখ হাসিনার রচনা সমগ্র(২), নিঃসঙ্গ কারাগারে শেখ হাসিনার ৩৬১ দিন, আমরা জনগণের কথা বলতে এসেছি, সহে না মানবতার অবমাননা, সমৃদ্ধ আগামীর প্রতিচ্ছবি-সজীব ওয়াজেদ জয়, বিপন্ন গণতন্ত্র লাঞ্চিত মানবতা, দেশরত্ন শেখ হাসিনা, বাংলাদেশের স্বৈরতন্ত্রের জন্ম। বঙ্গবন্ধু ও রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার পোস্টার, বঙ্গবন্ধু ও রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার ছবি দ্বারা অলংকৃত চীনামাটির মগ, রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সম্মাননা  প্রাপ্তির সচিত্র প্রতিবেদন সম্বলিত যুবলীগের ক্যালেন্ডার এখানে পাওয়া যায়।
 
যুব জাগরণের প্রশংসনীয় উদ্যোগ
 
বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী এবারের বইমেলায় একটি প্রশংসনীয় ও অনুকরনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। তিনি যুব জাগরণ স্টলে বঙ্গবন্ধুর “ অসমাপ্ত আত্মজীবনী ” ও রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার লেখা “ শেখ মুজিব আমার পিতা ” গ্রন্থ দু’টির প্রতিটি মাত্র একশত টাকা করে বিক্রির নির্দেশ দিয়েছেন। এ সম্পর্কে যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, যারা স্বাধীন বাংলাদেশের অস্তিত্তে বিশ্বাসী তারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে ভালোবাসেন। বাংলাদেশের মানুষ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানতে চান। আর বঙ্গবন্ধুকে জানার সবচেয়ে উত্তম মাধ্যম হলো বঙ্গবন্ধুর নিজের লেখা বই “ অসমাপ্ত আত্মজীবনী ”  ও  রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার নিজের লেখা বই “ শেখ মুজিব আমার পিতা ”। এই বই দু’টি পড়লে উপলব্ধি করা যায় বঙ্গবন্ধু এই বাংলার সবুজমাঠ, ফসলের ক্ষেত আর সোঁদা মাটি থেকে উঠে আসা এমন একজন ভূমিপুত্র যিনি এই মা-মাটি-মানুষকে তাঁর প্রাণের থেকেও ভালোবাসতেন। এই দেশ এবং মানুষের সাথে ছিল তাঁর নাড়ীর সম্পর্ক, নিবিড় আত্মিক বন্ধন। আমি বিশ্বাস করি আজকের প্রজন্ম তথা সকল বাঙালীর বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানার অধিকার রয়েছে। আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের  রাজনীতি করি, তাঁর আদর্শ ও বাংলাদেশের মানুষের কাছে আমাদের দায়বদ্ধতা রয়েছে। সেই দায়বদ্ধতা থেকেই বঙ্গবন্ধু ও তাঁর আদর্শকে সকল বাঙালীর কাছে পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে এই বই দু’টি স্বল্প মূল্যে বিক্রির উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। আমাদের এই উদ্যোগে যদি নতুন প্রজন্মের একজন মানুষও বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করেন তাহলে আমাদের প্রচেষ্টা সার্থক হয়েছে বলে ধরে নেব।
 
মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্টল পরিদর্শন
 
একুশের গ্রন্থমেলা ২০১৬ উদ্বোধন শেষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা “ যুব জাগরণ ” স্টলটি পরিদর্শন করেন এবং যুবলীগের এ উদ্যোগকে স্বতঃস্ফুর্তভাবে সাধুবাদ জানান। এ সময় তিনি তাঁকে নিয়ে যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরীর লেখা “ জনগণের ক্ষমতায়ন -  বিশ্ব শান্তির নেতা রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা ” বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অনেকটা সময় ধরে যুবলীগের প্রকাশনাসমূহ ও তাঁর নিজের লেখা বইগুলো মনোযোগ সহকারে দেখেন।
 
পাঠকদের  উপস্থিতি ও প্রতিক্রিয়া
 
প্রতিদিন সকল বয়সের শত শত ক্রেতা-দর্শনার্থী  “ যুব জাগরণ ” স্টল পরিদর্শন করছেন। তারা অনেক সময় ধরে স্টলের বইপুস্তকগুলো ভালো করে দেখছেন  এবং কিনছেনও  প্রচুর। এ স্টলে বঙ্গবন্ধুর “ অসমাপ্ত আত্মজীবনী ” বইটি মাত্র একশ’ টাকায় বিক্রি হওয়ার বিষয়টি ইতোমধ্যেই মেলায় আগত মানুষের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে এবং পাঠকদের ব্যাপক প্রশংসা কুড়াতে সক্ষম হয়েছে। মেলায় আগত ক্রেতা-দর্শনার্থীরা যুবলীগ চেয়ারম্যানের এই মহতী উদ্যোগকে অকুণ্ঠচিত্তে সাধুবাদ জানাচ্ছেন। তাদের অনেকেই বঙ্গবন্ধুর “ অসমাপ্ত আত্মজীবনী ”  বইটি মেলার সকল স্টলে এ রকম স্বল্প মূল্যে বিক্রির জন্য স্টল মালিকদের  প্রতি অনুরোধ জানান। আবার কেউ কেউ বইটি স্বল্পমূল্যে দেশের সর্বস্তরের মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়ার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানান।
 
ক্রেতা-দর্শকদের  অনেকেই নান্দনিক এ স্টলের সামনে দাঁড়িয়ে ছবি তুলছেন। স্টলটির সামনের টাওয়ারে তেরফুট উচ্চতা বিশিষ্ট রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার একটি বিলবোর্ড রয়েছে। যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরীর লেখা “ জনগণের ক্ষমতায়ন  বিশ্ব শান্তির নেতা রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা ” গ্রন্থের প্রচ্ছদটিকেই বিলবোর্ড আকারে এখানে রাখা হয়েছে। প্রতিদিন শত শত নারী পুরুষ এই ডিজিটাল বিলবোর্ডের সামনে দাঁড়িয়ে ছবি তুলছেন। এই বিলবোর্ড এবং যুব জাগরণ স্টল ইতোমধ্যে মেলায় আগত মিডিয়া কর্মীদেরও  মনোযোগ আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়েছে।
 
মিডিয়া  কর্মীদের  প্রতিক্রিয়া
 
যুব জাগরণ স্টলটি ইতোমধ্যেই দেশের সকল ধরনের মিডিয়া কর্মীদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে পৌঁছে গেছে। প্রতিদিন ইলেট্রনিক্স, প্রিন্ট, এফএম রেডিও, অনলাইন মিডিয়ার কর্মীরা ইতিবাচক মনোভাব নিয়ে খুব আগ্রহের সাথে যুব জাগরণ স্টলটি পরিদর্শন করছেন এবং স্বতঃস্ফুর্তভাবে এ স্টল সংক্রান্ত খবরাখবর নিয়মিত তাদের নিজ নিজ মিডিয়ায় খুব গুরুত্বসহকারে পরিবেশন করছেন। বিশেষ করে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী মাত্র একশ’ টাকায় বিক্রির বিষয়টি তারা অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে মিডিয়াতে নিয়মিত প্রচার করছেন।
 
বরেণ্য রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ও গুণীজনদের স্টল পরিদর্শন
 
প্রতিদিনই দেশের খ্যাতনামা রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতি জগতের গুণীজন ও বিশিষ্ট মিডিয়া ব্যক্তিত্বরা যুব জাগরণ স্টলটি পরিদর্শন করছেন এবং এ স্টল থেকে তাদের পছন্দমতো বই কিনছেন। ইতোমধ্যে মাননীয় তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু এমপি, সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি, সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি এমপি, আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক এমপি, আইসিটি সচিব বরেণ্য কবি আসাদ চৌধুরী, প্রখ্যাত গণসংগীত শিল্পী ফকির আলমগীর, মোহাম্মদ সেলিম, চিকিৎসাবিদ ডা, অরুপ রতন চৌধুরী, নাট্য ব্যক্তিত্ব এম এ আজিজ, সাংবাদিক নেতা শাহেদ চৌধুরী, ঝর্ণামণি সহ দেশের অনেক বিশিষ্ট ব্যক্তি যুব জাগরণ স্টল পরিদর্শন করেছেন। এসব গুনীজন রাজনৈতিক সংগঠন হিসাবে যুবলীগের এ ধরণের ব্যতিক্রমী উদ্যোগকে অত্যন্ত মহৎ এবং রাজনৈতিক অংগনের নুতন পথনির্দেশক ঘটনা বলে মত ব্যক্ত করেছেন।
 
মন্তব্য বই সংরক্ষণ
 
“ যুব জাগরণ ” স্টলের আরেকটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ হলো মন্তব্য বই সংরক্ষণ। প্রতিদিন স্টলে আগত পাঠকরা মন্তব্য বইয়ে যুব জাগরণ স্টল সম্পর্কে  তাদের নিজস্ব মতামত ব্যক্ত করছেন। মেলার অন্য কোনো স্টলে পাঠকদের মতামত ও প্রতিক্রিয়ার প্রতি সম্মান প্রদর্শনের লক্ষ্যে এ ধরণের কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। “ যুব জাগরণ ”  স্টলের এ উদ্যোগটিও মেলায় আগতদের ব্যাপক প্রশংসা অর্জনে সক্ষম হয়েছে।
        
 
বিবার্তা/বিজ্ঞপ্তি/মহসিন       
সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (২য় তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১১৯২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2019 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com