একদিন হয়তো ভাল ফটোগ্রাফার হবো

একদিন হয়তো ভাল ফটোগ্রাফার হবো
প্রকাশ : ১০ আগস্ট ২০১৬, ১৫:৪৮:১৪
একদিন হয়তো ভাল ফটোগ্রাফার হবো
‘ফটো অব দ্য উঈক’ (৩০ জুলাই-০৫ অক্টোবর)
উজ্জ্বল এ গমেজ
প্রিন্ট অ-অ+
ছবি তোলা তার পেশা নয়, নেশা। মানুষের এক চিলতে হাসি, অসহায় মানুষের চোখের পানি,  শ্রমিকের ঘর্মাক্ত শরীর -  এসব ছবি তুলতে ভালো লাগে তার। আমাদের সাধারণ জীবনের হাজারো অসাধারণ মুহূর্তকে ক্যামেরাবন্দি করতে পছন্দ করেন উদীয়মান ফটোগ্রাফার জাহিদ এ অপু।
 
অপুর জন্ম নারায়ণগঞ্জে। তার বেড়ে ওঠাটা  আর দশটা সাধারণ ছেলের মতোই।  বর্তমানে পড়াশোনা করছেন ঢাকার ‘ইনস্টিটিউট অব সাইন্স অ্যাণ্ড টেকনোলজি, বাংলাদেশ’-এ কম্পিউটার প্রকৌশল বিভাগে।  সেই সাথে ‘ম্যাট ফটোগ্রাফি’তে সহযোগী ফটোগ্রাফার এবং ‘কিঞ্চনগল্প’তে স্থিরচিত্র প্রকৌশলী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন জাহিদ অপু।   
 
বিবার্তা’র আয়োজনে গত সপ্তাহে ৭১পিক্স 'ফটো অব দ্যা উইক' প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে সেরা হয়েছেন অপু। তরুণ এই ফটোসাংবাদিক সম্প্রতি মুখোমুখি হন বিবার্তার। জানান  নিজের ফটোগ্রাফি জীবনের গল্প। সেই গল্প পাঠকদের জানাচ্ছেন বিবার্তা২৪ডটনেটের নিজস্ব প্রতিবেদক উজ্জ্বল এ গমেজ। 
 
বিবার্তা : আপনার নির্বাচিত ছবিটির পেছনের কথা জানতে চাই।  
 
জাহিদ অপু : ছবিটি ছিল একজন জাহাজ নির্মাণ শ্রমিকের, যিনি আগুনের স্ফুলিঙ্গের সাথে খেলা করে ছোট ছোট লোহাকে কাজে লাগিয়ে বড় জাহাজ তৈরির একজন কারিগর । ছবি তোলার সময় তার মুখে ছিল মাস্ক (মুখোশ)। এ অবস্থায় যখন আমি তাকে মাস্ক খুলে হাসি দিতে বলেছিলাম তখন তিনি মাস্ক না খুলেই চশমায় আটকে থাকা ঘামগুলো ফেললেন । তারপর বললেন,  ‘আমরা যদি ছবি তুলতে পারতাম তাইলে দেখতেন আপনেরা কতো শান্তিতে থাকেন ’। এটা ছিল ছবির পেছনের ঘটনা । সামনের ঘটনার শ্রমিকটা আমি। 
বিবার্তা : মনে হচ্ছে ছবি তোলার হবিটা আপনার আরো আগে থেকেই...
 
জাহিদ অপু :  আমি ছোটবেলা থেকে কাগজে রঙ তুলি ছিটানোর খেলাটা খুব পছন্দ করতাম। যখন ছোট ছিলাম এটা ছিল তখনকার  শখ। অনেকটা সময় চলে গেছে।  কখন যে রঙ তুলির বদলে ক্যামেরার আয়নাকে সময় দিতে শিখে গেছি, আর সেটা যে শখ হয়ে গেছে  তা বুঝেই উঠিনি...।
 
বিবার্তা : আপনি ছবি তোলার অনুপ্রেরণা পান কোথা থেকে?
 
জাহিদ অপু : নিজের ভেতর থেকেই। নিজের আশেপাশের সাধারণ জীবনই আমার ছবি তোলার প্রধান অনুপ্রেরণা। যখন কেউ আমাকে জিজ্ঞাসা করে আমি কাউকে অনুসরণ করি কিনা, ‘আমি বলি অনুসরণ ছাড়া কিছু শেখা যায় না। তবে নিজের মনকে অনুসরণ করা থেকে আর বড় কিছুই হতে পারে না। মন আপনাকে এমন কিছু শিখিয়ে দেবে যা অন্য কেউ দিতে পারবে না। হাজার চেষ্টার পরও না... ’।
 
বিবার্তা : ভালো ফটোগ্রাফার হওয়ার জন্য আসলে কী দরকার - দামি ক্যামেরা নাকি অন্য কিছু?
 
জাহিদ অপু : ভালো ফটোগ্রাফার হওয়ার জন্যে অবশ্যই একটা ভালো মন চাই। ছবি  তোলা শুধু আলো-ছায়ার খেলাই নয়, সেটা মানুষের সাথে ভালোবাসার এক ভাষা।  প্লাস্টিকের একটা যন্ত্র কখনও কাউকে এগিয়ে দেয় না। তার প্রমাণ আমি। আমি ক্যাননের সবচেয়ে কমদামি যন্ত্র ব্যবহার করি...। যন্ত্রটা আমাকে শিখিয়ে দেয়নি কিভাবে ভাল ছবি তুলতে হবে। নিজের চেষ্টা ও সাধনায় আমি ছবি তোলা শিখছি। একদিন হয়তো ভাল ফটোগ্রাফার হয়ে যাবো।
একদিন হয়তো ভাল ফটোগ্রাফার হবো
বিবার্তা : ফটোগ্রাফি করতে গিয়ে নিশ্চয়ই অনেক ঘটনার মুখোমুখি হয়েছেন। তেমন মজার কোনো ঘটনার কথা কি বলবেন?
 
জাহিদ অপু : কুমিল্লায় একবার ছবি তুলতে গিয়ে ভালো সমস্যায় পড়েছিলাম । একজন বৃদ্ধের ছবি তুলছিলাম। ছবি তোলা শেষে তিনি বললেন,  ‘আমার ছবি আমারে দেন’।  আমি অবাক হয়ে বললাম,  কাকা ছবি পরে দেখতে পারবেন । কিন্তু তিনি আমাকে কিছুতেই ছাড়বেন না । বললেন, ‘আজকাল ছবি তুলে মানুষ সেটাকে কতো কিছু করে ফেলে । আপনি ওদের একজন’। ৫ মিনিট পর পর আমি বলছিলাম, কাকা আমাকে যেতে দেন । উত্তর একটাই, আপনাদের মতো মানুষকে আমার খুব ভালোভাবেই চেনা আছে। ভণ্ড লোক । শেষে একজন মহিলা আমাকে উদ্ধার করেন।
 
বিবার্তা/উজ্জ্বল/মৌসুমী/হুমায়ুন
 
 
সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (২য় তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১১৯২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2019 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com