মোটুদের জন্য এক ডজন রেসিপি

মোটুদের জন্য এক ডজন রেসিপি
প্রকাশ : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬, ০০:০৫:৪৯
মোটুদের জন্য এক ডজন রেসিপি
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

এটা ঠিক যে এই সমাজে মোটা মানুষের জীবন সহজ নয় মোটেও। নানান ভাবে তাঁদেরকে সামাজিকভাবে হেয় করা হয়, হতে হয় আজেবাজে কথা ও টিটকারির শিকার। অন্যদিকে এটাও ধ্রুব সত্য, মোটা মানুষেরা নিজেও নিজেকে নিয়ে ভোগেন নানান রকমের সমস্যায়। কারো হীনমন্যতা বা বিষণ্ণতা কমে না কিছুতেই, কেউ পোশাক বা সাজসজ্জা নিয়ে বিব্রত হন, কেউ সামাজিক অনুষ্ঠান এড়িয়ে চলেন, কারো থাকে নানান রকমের স্বাস্থ্য সমস্যা। আপনিও কি ওজন বেশি নিয়ে সমস্যায় ভুগছেন? তাহলে জেনে রাখুন এই ১০টি কথা...

১. হ্যাঁ, আপনি মোটা। কিন্তু এটাতে পৃথিবী শেষ হয়ে যায় না। মোটা হয়ে যাওয়া এমন কোন অপরাধ নয় যে সেটার জন্য আপনি হীনমন্যতায় ভুগবেন বা বিষণ্ণতায় ডুবে যাবেন। যারা মানুষের দৈহিক ব্যাপার নিয়ে রসিকতা করে, মন তাদের ছোট। এসব মানুষের জন্য আপনার কষ্ট পাবার কোন দরকার নেই।

২. মোটা হবার সাথে সৌন্দর্যের কোন সম্পর্ক নেই বা মোটা হলেই কেউ অসুন্দর হয়ে যায় না। প্রতিটি মানুষ তাঁর নিজের মত করে সুন্দর এবং এটা মোটেও সান্ত্বনাসূচক কোন বাণী নয়। বরং এটাই সত্য।

৩. মোটা মানুষের ভালোবাসা পাবার অধিকার নেই বা তাঁদেরকে কেউ ভালোবাসে না, এমন ধারণাও মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলুন। যে ভালোবাসা শরীরের আয়তন দেখে হয়, সেটা আদৌ ভালোবাসা নয় এবং এটাও মনে রাখুন।

৪. হ্যাঁ, ওজন কম রাখা ভালো। তবে সেই ওজন কমানোর জন্য কোন অস্বাস্থ্যকর উপায় বেছে নেবেন না। এবং খুব দ্রুত ওজন কমানোর চেষ্টাও করবেন না। ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী চেষ্টা করুন ওজন কম করার।
মোটুদের জন্য এক ডজন রেসিপি


৫. একটা জিনিস মনে রাখবেন, ওজন কম করা কোন ম্যাজিক নয়। এই কাজে সময় লাগে। আবার সবার ক্ষেত্রে নানান কারণে ওজন কম করা সম্ভব নাও হতে পারে। এটার জন্য দায়ী হতে পারে কোন অসুখও। তাই এমন পরিস্থিতিতে মন ছোট করবেন না কিছুতেই।

৬. ওজন কমাতে চান ভালো কথা, তবে সেটা যেন স্বাস্থ্যের কারণে হয়। সুস্থতাই বড় সম্পদ। কেউ আপনাকে বলেছে বলে বা কারো ভালোবাসা পাওয়ার জন্য ওজন কম করবো- এমন ভাবনাকে মনে ঠাঁই দেবেন না।

৭. ওজন বেশি মানুষেরা কোন উৎসব-অনুষ্ঠানে গেলে অস্বস্তি বোধ করেন। নিজের পোশাক, দেখতে বাজে দেখাচ্ছে কিনা, জায়গার স্বল্পতা, কোথায়-কীভাবে বসবেন ইত্যাদি নিয়ে বিব্রত হন অনেকেই। এই সমস্যা থেকে মুক্তির উপায় কিন্তু অনুষ্ঠানে না যাওয়া নয়। বরং নিজের সাজসজ্জা সম্পর্কে সচেতন হয়ে উঠুন। এমন পোশাক পড়ুন, যেটা আপনার সাথে একদম মানানসই। ভিড়ভাট্টা একটু এড়িয়ে চলুন। নিজের চলাফেরায় একটু সচেতন থাকুন। তাহলেই আর ঝামেলা হবে না কোন।

৮. একটা জিনিস মনে রাখবেন, আপনার বন্ধুরা যা পারে আপনি হয়তো সবসময় সেটা নাও পারতে পারেন। যেমন ধরুন আপনার কোন বন্ধু ১ মাইল দৌড়ে এলে তো আর আপনিও সেটা করতে পারবেন না, তাই অন্যের সাথে প্রতিযোগিতা বাদ দিন বা এমন কিছু করবেন না যা আপনি পারেন না।

৯. কাছের মানুষদের কেউ আপনার ওজন নিয়ে রসিকতা করলে রেগে যাবেন না। মনে মনে কষ্ট পেলে সেটা চেপে রাখুন। বরং তাঁদেরকে হাসিমুখে উপযুক্ত জবাব দিন, সম্ভব হলে তাঁদের নীচ আচরণের জন্য হাসিমুখেই লজ্জা দিয়ে দিন। একদিনে কাজ না হলেও আস্তে আস্তে হবে।

১০. জুতো পড়ার ক্ষেত্রে সবসময় ফ্ল্যাট স্যান্ডেল বা শু বেছে নিন। এতে যেমন অপ্রীতিকর সমস্যা থেকে বাঁচবেন, তেমনি পা ব্যথাসহ অনেক রকমের শারীরিক সমস্যা হবে না।

১১. সঠিক মাপের ফিটিং অন্তর্বাস পরবেন। বিশেষ করে মেয়েরা।

১২. ওজন কমুক আর নাই কমুক, নিয়মিত ব্যায়াম করবেন। এতে আপনার কর্মক্ষমতা ঠিক থাকবে, আপনি থাকবেন ফিট। আর কিছু না হোক, দৈনিক অন্তত আধা ঘণ্টা হাঁটবেন।
বিবার্তা/জিয়া
 

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (২য় তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১১৯২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2020 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com