রাবি শিক্ষকদের অবস্থান ধর্মঘট

রাবি শিক্ষকদের অবস্থান ধর্মঘট
প্রকাশ : ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৬, ১৬:১১:৩১
রাবি শিক্ষকদের অবস্থান ধর্মঘট
রাবি প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) কৃষি অনুষদের ফিশারিজ বিভাগ ও এগ্রোনমি অ্যান্ড এগ্রিকালচারাল এক্সটেনশন বিভাগের কক্ষ বরাদ্দের কাজ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন না হওয়ায় অবস্থান ধর্মঘট পালন করেছেন উভয় বিভাগের শিক্ষকরা। 
 
বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত তারা এই অবস্থান ধর্মঘট কর্মসূচি পালন করেন। তবে শিক্ষকদের এই আন্দোলন-কর্মসূচি ক্লাস-পরীক্ষার আওতামুক্ত ছিল বলে জানা গেছে।
 
সরেজমিনে দেখা যায়, ফিশারিজ বিভাগের উপ রেজিস্ট্রারের কক্ষের সামনে ব্যানার ও চেয়ার নিয়ে বসে আছেন বিভাগের ১২-১৫ শিক্ষক। তার বিপরীত দিকে চেয়ার নিয়ে বসেন আছেন এগ্রিকালচারাল এক্সটেনশন বিভাগের শিক্ষকরা। দুই বিভাগের শিক্ষকদের অবস্থানের কারণে যাতায়াত করতে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে অন্য বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের।
 
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশল দপ্তর সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদ ভবনে বেশকিছু নতুন কক্ষ নির্মাণ করা হয়। এসব কক্ষ কৃষি অনুষদের চার বিভাগের মধ্যে বণ্টন করে দেন অনুষদের ডীন এবং ক্রপ সায়েন্স এন্ড টেকনোলজী বিভাগের  প্রফেসর সাহানা কায়েস। 
 
বরাদ্দ পাওয়া বিভাগ চারটি হলো- ক্রপ সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি, এগ্রোনমী এন্ড এগ্রিকালচারাল এক্সটেনশন, ফিশারীজ এবং এনিমেল হাজবেন্ড্রী এন্ড ভেটেরিনারি সায়েন্স বিভাগ। এই বরাদ্দ নিয়ে শুরু থেকে নিজেদের অসন্তোষের কথা জানিয়ে আসছিলেন এগ্রোনমী ও ফিশারীজ বিভাগ।
 
ভবনের ২৫টি শ্রেণিকক্ষের মধ্যে ফিশারিজ বিভাগকে ২টি, এগ্রোনমী ২টি, ক্রোপ সায়েন্স ১০টি ও ভেটেরিনারি বিভাগকে ১১টি কক্ষ বরাদ্দ দেয়া হয়। আর নব নির্মিত ১৪টি চেম্ববারের ফিশারিজ বিভাগকে ২টি,এগ্রোনমী ২টি, ক্রোপ সাইন্স ৫টি ও ভেটেরিনারি বিভাগকে ৫টি করে বরাদ্দ দেয়া হয়। 
 
তবে এগ্রোনমী ও ফিশারীজ বিভাগের অভিযোগ প্রফেসর সাহানা কায়েস ক্রপ সায়েন্স এন্ড টেকনোলজী বিভাগের শিক্ষক হওয়ায় তিনি শ্রেণিকক্ষ বন্টনে বৈষম্য করেছেন।
 
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে এগ্রোনমি এন্ড এক্সটেনশন বিভাগের সভাপতি ড. মো. আমিনুল হক বলেন, আমাদের বিভাগের বরাদ্দকৃত ২০০০ বর্গফুটের জায়গার পরিবর্তে ১৯২২ বর্গফুট দেয়া হয়েছে। বরাদ্দকৃত জায়গার সাথে অতিরিক্তি ১৫০০ বর্গফুট জায়গা আমাদের দিতে হবে। এছাড়াও একটি বড় ক্লাসরুম, দুইটি শিক্ষক রুম এবং একটি স্টোর রুমেরও দাবি করেন তিনি।
 
ফিশারীজ বিভাগের সভাপতি প্রফেসর আফজাল হুসাইন বলেন, শ্রেণীকক্ষ ও শিক্ষকদের চেম্বার একতরফাভাবে বণ্টন করা হয়েছে। আমরা সুষ্ঠু বন্টনের দাবিতে অবস্থান ধর্মঘট পালন করছি। আমাদের সাথে এগ্রোনমী এন্ড এগ্রিকালচারাল এক্সটেনশন বিভাগ একাত্মা ঘোষণা করেছে দাবি না হওয়া পর্যন্ত কর্মসূচি চলবে।
 
বিবার্তা/নাঈম/কাফী
 
সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (২য় তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১১৯২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2020 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com