হিলারি-ট্রাম্প বিতর্কে কর্মসংস্থান, কর ও নিরাপত্তা ইস্যু

হিলারি-ট্রাম্প বিতর্কে কর্মসংস্থান, কর ও নিরাপত্তা ইস্যু
প্রকাশ : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬, ১২:০৫:০৮
হিলারি-ট্রাম্প বিতর্কে কর্মসংস্থান, কর ও নিরাপত্তা ইস্যু
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

আসন্ন মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দুই প্রধান দলের প্রার্থীদের  ‍মুখোমুখি প্রথম বিতর্কে কর্মসংস্থানের নিশ্চয়তা, করারোপ ও নিরাপত্তা ইস্যু প্রাধান্য পেয়েছে।

বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার সকালে নিউইয়র্কের হেমস্টেডে হোফস্ট্রা বিশ্ববিদ্যালয়ের মিলনায়তনে মুখোমুখি হন ডেমোক্রেটিক প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন ও রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। ৯০ মিনিটের এই বিতর্কে সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন এনবিসি টিভির লেস্টর হল্ট।

বিতর্কের শুরুতেই কর্মসংস্থান নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান অবস্থার সমালোচনা করেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো গুটিয়ে যাচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের লোকজন চাকরি পাচ্ছে না। দৃঢ় চীনা অর্থনীতি ধাক্কা দিচ্ছে মার্কিন অর্থনীতিতে। আর এ কারণেই প্রয়োজন কর কমিয়ে দেয়া।

কর হ্রাসের পক্ষে শুরু থেকেই যুক্তি তুলে ধরেন ট্রাম্প। তার মতে, কর হ্রাসের ফলে বড় প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যবসা করতে পারবে। অন্যরা ব্যবসার জন্য এগিয়ে আসবে। বর্তমান কর নীতিতে পুঁজিপতিরা উৎসাহী নয়।  

অন্যদিকে হিলারি ক্লিনটন কর হ্রাসের বিপক্ষে যুক্তি তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ‘আমি ধনীদের কর কমিয়ে দেয়ার পক্ষে নই। আমি চাই ছোট ব্যবসায়ীরা এগিয়ে আসুক। ধনীরা যথেষ্টই অর্জন করেছে।’  

তিনি বলেন, ‘ট্রাম্প ভাগ্যবান। তিনি ধনীর ছেলে ছিলেন। বড় সম্পদ দিয়ে ব্যবসা শুরু করেন। আমার বাবা ছিলেন মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান।’

জ্বালানি নিয়ে বর্তমান নীতির সমালোচনা করেন ট্রাম্প। অন্যদিকে সৌর শক্তি সম্ভাবনা নিয়ে যুক্তি তুলে ধরেন হিলারি।

বিতর্কে বর্তমান আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি তুলে ধরেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, এ মুহূর্তে যুক্তরাষ্ট্রে আইন-শৃঙ্খলা নিশ্চিত করা প্রয়োজন। গত কয়েক মাসে বিভিন্ন সংঘর্ষে যুক্তরাষ্ট্রে কয়েক হাজার মানুষ নিহত হয়েছেন। দ্রুত আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিত স্বাভাবিক করার দাবি জানান তিনি। আর এ ক্ষেত্রে পুলিশের সদস্য বাড়ানোর পক্ষেও যুক্তি তুলে ধরেন।

অন্যদিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনার কথা বলেন হিলারি। অপরাধসংক্রান্ত আইন সংস্কারের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন। এক্ষেত্রে বিভিন্ন সংস্কার আনবেন বলে জানান তিনি। একই সঙ্গে বর্তমান অস্ত্র আইনে সংস্কার আনার কথাও জানান।

নির্বাচনী প্রচারের সময় ট্রাম্প নারীদের প্রতি বৈষম্যমূলক বিভিন্ন মন্তব্য করেন বলে জানান হিলারি। তিনি এসব মন্তব্য উপস্থাপনও করেন।

বিতর্কের পর সিএনএন/ওআরসির প্রকাশ করা এক জরিপে জরিপে বলা হয়, ৬২ শতাংশ মনে করেন বিতর্কে হিলারি জয়ী হয়েছেন। অন্যদিকে মাত্র ২৭ শতাংশ মনে করেন ট্রাম্প জয়ী হয়েছেন। সূত্র: লন্ডন নিউজ

বিবার্তা/নিশি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (২য় তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১১৯২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com